1. admin@atvnews24.com : admin : Ashraf Iqbal
  2. bandpothik683@gmail.com : Asif Badhan : Asif Badhan
  3. smshorifgz@gmail.com : Shorif Gazi : Shorif Gazi
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কামরাঙ্গীরচরের ঝাউলাহাটিতে কামরাঙ্গীরচর থানা কতৃক উঠান বৈঠক সিলেট শাহজালাল মাজারের ওরসে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হস্তান্তর করেছে সিসিক দেশকে শিশুশ্রম মুক্ত করা জন্য সকলকে কাজ করতে হবে : শ্রম প্রতিমন্ত্রী সংবিধানে বলা আছে আমরা জনগণের সেবক : যুগ্মসচিব নাসরিন জাহান এ দেশে এখন কেউ আর নিরাপদ নয়, বিচার চলছে শুধু বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদের উপর: জাকির দেশের আগামী প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে : বীর মুক্তিযোদ্ধা রুমা চক্রবর্তী সিলেটে কবি নজরুলের ১২৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা সরকার দলীয়করণের মাধ্যমে ক্রীড়াঙ্গনকে ধ্বংস করে দিয়েছে : আমিনুল হক সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষায় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন সময়ের দাবী : শামসুল আলম সেলিম শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে বন্য হাতি তাড়াতে টর্চ লাইট বিতরণ

সিলেটে হোটেল শ্রমিকনেতা গ্রেফতারের প্রতিবাদে নগরিতে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল করেন

এটিভি নিউজ ২৪ ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ মে, ২০২৪
  • ১৩ বার পঠিত

সিলেট ব্যুরোচীফ -শরীফ গাজী : সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সাগর মিয়া ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি শাহিন আহমদ-কে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারের প্রতিবাদে ২ মে বিকেল ৫টায় সুরমা পয়েন্টে জমায়েত হয়ে এক বিক্ষোভ মিছিল নগরির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে কোর্ট পয়েন্টে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যাপক আবুল ফজল, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সরকার, শাহপরান থানা কমিটির সভাপতি খোকন আহমদ, জাতীয় ছাত্রদল সিলেট জেলা কমিটির আহবায়ক শুভ আজাদ শান্ত, সিলেট জেলা স’মিল শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা কমিটির সভাপতি মনির উদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুমিন রাজু।
১ মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস মহান মে দিবস পালন করে সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন। মে দিবসে ছুটি ভোগ করা শ্রমিকদের আইনি অধিকার হলেও কতিপয় হোটেল মালিকরা প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে এবং জোরপূর্বক শ্রমিকদেরকে দিয়ে কাজ করান। বেশিরভাগ হোটেল-রেস্টুরেন্ট বন্ধ থাকলেও অল্পসংখ্যক মালিক প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার কারণে মালিকদের মধ্যে ব্যবসায়িক দ্বন্ধ ও রেষারেষির কারণে শহরে রেস্টুরেন্ট ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। ভাংচুরের সময় হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের কোর্ট পয়েন্টের সমাবেশস্থলে অবস্থান করলেও মালিকদের ষড়যন্ত্র-চক্রান্তের শিকার হন হোটেল শ্রমিকরা।
সমাবেশ থেকে বক্তারা কতিপয় মালিক গোষ্ঠীর ষড়যন্ত্রমূলক, হয়রানিমূলক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে শ্রমিকদের উপর দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নেতাদের মুক্তির দাবি জানান।

Facebook Comments Box
এই ক্যাটাগরির আরও খবর