Main Menu

পলককে পূর্ণ মন্ত্রী দেখতে চায় সিংড়াবাসী

 

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি
তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এড. জুনাইদ আহমেদ পলক এমপিকে পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় সিংড়া উপজেলাবাসী। সিংড়াবাসী মনে করেন, সৎ, যোগ্য, বিনয়ী ও তথ্য-প্রযুক্তির ফেরিওয়ালা পলক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নতুন মন্ত্রীসভায় পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে থাকবেন।
তিনি ২০০৮ সালে বিএনপির গোলাম মোর্শেদকে বিপুল ভোটে হারিয়ে দেশের সর্ব কনিষ্ঠ এম.পি নির্বাচিত হোন, ২০১৪ সালে বিএনপি নির্বাচনে না যাওয়ায় ওয়ার্কার্স পার্টির মিজানুর রহমানকে হারিয়ে আবারো এম.পি নির্বাচিত হোন, শুধু এম.পিই নয় তিনি সিংড়ার প্রথম মন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রীসভায়ও নাম লেখান। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর বিএনপির দাউদার মাহমুদকে হারিয়ে তৃতীয় বারের মত এম.পি নির্বাচিত হোন জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সাথে আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

পলক এম.পি নির্বাচিত হওয়ার পর ১৬ কোটি ৫০ লাখ ব্যয়ে নতুন ৪০টি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ করেছে। প্রায় ১০ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার ২৬টি কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয় পূন:নির্মাণ/সংস্কার করেছে। ৬টি কলেজ, প্রায় ১০০টি সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ও ৫টি মাদ্রাসায় নতুন ভবন নির্মাণ। ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩ তলা বিশিষ্ট ৫০ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণ। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে জরুরী সেবা প্রদানের জন্য ২৫ লাখ ও ১৮ লাখ টাকা ব্যয়ে উন্নতমানের দুটি এ্যাম্বুলেন্স প্রদান। সিংড়ায় ডায়াবেটিক সমিতি প্রতিষ্ঠা। ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার ৪২টি কমিউনিটি ক্লিনিক সংস্কার। ৪৬ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার ৩০৭ কিলোমিটারে ৯১টি গ্রামের ৩৮ হাজার ৫’শ ১৯টি পরিবারের মাঝে নতুন বিদ্যুত সংযোগ প্রদান।

নাটোর জেলার সর্ববৃহৎ ‘সিংড়া বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ’ নির্মাণ করেছে। ৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলা প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম নির্মাণ। ২ কোটি ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে সিংড়া পৌর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ৪ তলা বিশিষ্ট্য উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লে¬ক্স ভবন নির্মাণ। ২৯ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলা চত্বরে জাতীয় স্মৃতিসৌধের আদলে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ। প্রায় ৫ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলায় প্রায় ৭৬ কিলোমিটার খাল খনন। প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩২টি গভীর নলকূপ স্থাপন।

উপজেলা ও পৌরসভার ৫৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন। উপজেলা ও পৌরসভার ৬৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন।
প্রায় ৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৬৩ কিলোমিটার পাকা রাস্তা নির্মাণ। ৩১ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ১২টি ব্রীজ (৮৮৭ মি) নির্মাণ। প্রায় ২২ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে সিংড়া-বারুহাস-তাড়াশ পর্যন্ত ১৪.৬৫০কিলোমিটার (আংশিক ডুবন্ত) সড়ক নির্মাণ।

সিংড়া বাসষ্ট্যান্ডে ২ কোটি ৭৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি ফুটওভার ব্রীজ, ৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে শহর রক্ষা বাঁধ স্থাপন করেছেন ও ২৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে হাইটেক পার্ক নির্মাণাধীন রয়েছে।
সিংড়ার এ উন্নয়ন চলমান রাখতে পলককে পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় সিংড়াবাসী।

সিংড়া পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, পলক শুধু সিংড়ার নয় সারাদেশের সম্পদ। বিগত দশ বছরে সিংড়ার যে উন্নয়ন হয়েছে তা অতুলনীয়। সিংড়ার এ উন্নয়ন ধরে রাখতে পলককে পূর্ণ মন্ত্রীত্ব দেয়া উচিত।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*