Main Menu

গুরুদাসপুরে ফসলি জমিতে পুকুর কাটা বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

নাটোর প্রতিনিধি.
নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের বৃ-কাশো গ্রামে তিন ফসলি জমিতে পুকুর কাটা বন্ধে এলাকাবাসি মানববন্ধন করেছে। সোমবার দুপুরে বৃ-কাশো ফসলের মাঠে ঘন্টা ব্যাপি ওই মানববন্ধনে এলাকার শত শত নারী-পুরুষ অংশগ্রহন করেন। এক শ্রেনীর মুনাফালোভী ও রাজনৈতিক পাতি নেতার লেবাসে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে প্রকৃত কৃষকদের বেশি মুনাফার লোভ দেখিয়ে ফসলি জমিকে পুকুরে রুপান্তর করার হচ্ছে।
এলাকাবাসি জানায়, বৃ-কাশো মৌজার ২৮১৬, ১৭, ১৮ এবং একই মৌজার ২৮০১ দাগের প্রায় ১০ বিঘা জমিতে পুকুর কাটার প্রস্তুতি নিচ্ছে জমির মালিক প্রভাবশালী ফজলুর রহমান ও আসাদ সরকার নামে ওই এলাকার দুই ব্যক্তি। ক্ষতিগ্রস্থ্য হওয়ার হাত থেকে ফসলি জমি রক্ষা ও বাড়িতে জলাবদ্ধতার রক্ষার জন্য প্রশাসনের উদ্ধোর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা।
ওই মানববন্ধনে কৃষক শহিদুল ইসলাম, সেবক রুস্তম আলী, মতিউর রহমানসহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন, বৃ-কাশো মৌজাতে ওই দুইটি জমিতে পুকুর কাটা হলে ৫শ বিঘা জমির ফসল ফলানো সম্ভব হবে না। জলবদ্ধতা লেগে থাকবে। জলাবন্ধতা লেগে বাড়িতে পানি উঠবে
স্থানীয় কৃষক রহিম, বশির, মজিদ বলেন, এলাকায় কৃষি জমিতে পুকুর কাটা বন্ধ না হলে প্রকৃত কৃষষের ভবিষৎ আগামী দিনে অন্ধকার হবে। জমির এই সামনের মুখে পুকুর খনন করা হলে পানি নিস্কাশন বন্ধ হয়ে যাবে। যার ফলে জমিতে ফসল ফলানো যাবে না। ভবিষতে মানুষ খাদ্য সংকটে পড়বে।। তাদের আয়ের উৎস মাঠে জমি চাষ করে ফসল ফলিয়ে সংসার চালানো এবং ছেলে মেয়েদের পড়াশোনার খরচ যোগানো। কিন্তু বিলের পাশে এবং বিলের মাঝখানে ইতিমধ্যেই কয়েকটি পুকুর আছে। তারপরও যদি এই দুইটি পুকুর নতুন করে খনন করা হয় তাহলে প্রায় সবগুলো জমিতে জলাবদ্ধতা কারনে ফসল ফলানো হবে না। এবিষয়ে ওই জমিতে পুকুর কাটার প্রস্তুতি নেওয়া ব্যক্তি ফজলুর রহমান বলেন, কারো ক্ষতি হয় এমন কিছু করার ইচ্ছা নাই। ওই জমিতে পুকুর কাটা বন্ধ রাখা হবে।
নাজিরপুর ইউপি চেয়ারমান মো. শওকত রানা লাবু বলেন, আমার ইউনিয়নে কৃষি জমিতে পুকুর খনন বন্ধে সব ধরনের প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে।
যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মনির হোসেন জানান, জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া কেই ফসলি জমিতে অবৈধ পুকুর খনন করলে পুকুর খনন কারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*